Laptop Keyboard Problem & Solution Leave a comment

ল্যাপটপের কীবোর্ড! যত্ন, সমস্যা এবং সমাধান।
Original Keyboard for your beloved Laptop at WIT Computers

কীবোর্ড একটি বহুল ব্যবহৃত ক্ষণস্থায়ী, ভঙ্গুর ও সংবেদনশীল ইনপুট ডিভাইস। এটি ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ উভয় কম্পিউটারের জন্য অতিব প্রয়োজনীয় হওয়ায় সর্দায় এর ব্যপক ব্যবহার হয়ে থাকে। ফলে এর সামান্যতম ত্রুটি বা ম্যালফাংশনিং এর কারনে আপনার অতিমূল্যবান কাজের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। সেজন্য ল্যাপটপ কীবোর্ডের প্রতি সর্বদা সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হয়।

✪✪ ল্যাপটপের কীবোর্ড সম্পর্কিত কিছু গরুত্বপূর্ণ তথ্যঃ
WIT Computers
প্রতিযোগীতামূলক বাজারে ল্যাপটপ কীবোর্ডের মূল্যভেদে তার কোয়ালিটি নির্ভর করছে। কপি কীবোর্ডের দৌরাত্বে ল্যাপটপের জন্য অ্যারিজিনাল কীবোর্ড প্রাপ্তি অনেকাংশে দুর্লভ হয়ে পড়েছে। তাই ল্যাপটপ কীবোর্ড ক্রয়ের পূর্বে কিছু সাবধানতা অবলম্বন কেরতে হয়।
➤ মূল্য নয় কোয়ালিটিতে গুরুত্বারোপ করতে হবে।
➤ কীবোর্ডটি যেহেতু সরাসরি মাদারবোর্ডের সাথে সংযুক্ত হয়ে থাকে, সেহেতু কপি অথবা নিম্নমানের কীবোর্ড আপনার ল্যাপটপ মাদারবোর্ডের ব্যপক ক্ষতি সাধন করতে পারে। যেমনঃ কীবোর্ড কন্ট্রোলার আই. সি. সর্ট হয়ে গিয়ে মাদারবোর্ডটিকে স্থায়ী অকেজো করে দিতে পারে।
➤ কপি ও নিম্নমানের কীবোর্ড আপনার টাইপিং স্পীডকে ধীরগতিসম্পন্ন করে দিতে পারে।
➤ কপি ও নিম্নমানের কীবোর্ডের পৃষ্ঠভাগে জল ও তাপ নিরোধক কোন প্রকার প্রতিরক্ষামূলক লেয়ার থাকে না বিধায় তা ল্যাপটপের আয়ুষ্কাল এর জন্য হুমকী সরুপ।

✪✪ কীভাবে বুঝবেনে আপনার ল্যাপটপ কীবোর্ডটি নষ্ট হয়েছে??
WIT Computers
➤ কিছু কিছু ”কী” বা “বাটন” কাজ না করা।
➤ সঠিক বাটনে ভুল আউটপুট দেওয়া। যেমনঃ আপনি “A” বাটন চাপ দিয়েছেন অথচ আউটপুট দিচ্ছে অন্য কোন অক্ষর।
➤ কীবোর্ডের যেকোন “কী” বা “বাটন” অটো হয়ে যাওয়া।
➤ কীবোর্ড ত্রুটির কারনে ল্যাপটপের থাকা যেকোন ফাইল বা আইকন অটো সিলেক্ট হয়ে যাওয়া।
➤ ডিসপ্লে বা এল.ই.ডি ফ্লিকিং হওয়া।
➤ ল্যাপটপ অপ্রত্যাশিতভাবে স্লো হয়ে যাওয়া।
➤ কীবোর্ড ত্রুটির কারনে ”পি” ”পি” শব্দ (বিপ টোন) হওয়া।
➤ টাচ প্যাড সাময়িকভাবে বিকল অথবা সঠিকভাবে কাজ না করা।
➤ LED বা ডিসপ্লের আলো কমে যাওয়া।

✪✪ উপরোক্ত লক্ষণগুলির ভিত্তিতে করণীয়ঃ
WIT Computers
প্রথমত, যেহেতু ল্যাপটপের কীবোর্ড মাদারবোর্ডের উপর অবস্থান করে থাকে, সেহেতু অবশ্যই পানি জাতীয় পদার্থ থেকে এটিকে রক্ষা করার জন্য লিকুইড প্রটেক্টর কাভার ব্যবহার করতে পারেন।
➤ দ্বীতিয়ত, যেহেতু আমাদের দেশে ধূলার পরিমান একটু বেশী, সেহেতু ধূলার আক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য “Dust Cover” ব্যবহার করতে পারেন। মাঝে মাঝে “Soft Brush” দিয়ে Keyboard-টি পরিস্কার রাখতে পারেন। এতে কীবোর্ডের আয়ুষ্কাল বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকে।
➤ তুতীয়ত, যেহেতু ল্যাপটপের কীবোর্ড একটি ভঙ্গুর, সংবেদনশীল এবং “Soft Plastic” দ্বারা নির্মিত হয়ে থাকে, সেহেতু শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
➤ তবে আশার কথা এই যে, যদি আপনার ল্যাপটপের কীবোর্ডটি নষ্ট হয়ে থাকে তাহলে এর যে বিকল্প “External Keyboard” ব্যবহারের সুযোগ আছে, সেহেতু প্রয়োজনে “External Keyboard” ব্যবহার করতে পারেন।
➤ যদি ল্যাপটপ কীবোর্ডটি ত্রুটিপূর্ণ বা অস্বাভাবিক আচরণ করে, সেই ক্ষেত্রে অবশ্যই মাদারবোর্ড থেকে “Keyboard Connection”-টি খুলে রাখতে হবে। অন্যথায় “External Keyboard”-টি Same আচরণ করবে।
বিশ্ব প্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে সাথে ল্যাপটপের চাহিদার উপর ভিত্তি করে ল্যাপটপ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো পাল্লা দিয়ে নিজ নিজ নতুন মডেলের ল্যাপটপ বাজারজাত করে আসছে। ফলে ল্যাপটপ কীবোর্ডের আকৃতি ও গঠনে ব্যপক পরিবর্তন পরিলক্ষিত হচ্ছে। যার দরুন আপনি হয়তো আপনার ল্যাপটপের জন্য কাঙ্খিত কীবোর্ড-টির “Replacement” ক্ষেত্রে অ্যারিজিনাল-টি খুঁজে পাচ্ছেন না। চলে আসুন ”উইট কম্পিউটারস্”-এ।
ল্যাপটপ পার্টস্ এর পথিকৃৎ WIT Computers বাংলাদেশের বাজারে দীর্ঘ ১৮ বছর যাবৎ ল্যাপটপ পার্টস্ বিক্রির বাজারে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। আমাদের রয়েছে ৯৫১-টি সিরিজের ও বেশী ল্যাপটপের কীবোর্ড ভান্ডার, যা আপনার চাহিদা পূরনে সক্ষম।

✪✪ ক্রয়ের পূর্বে নিশ্চিত হউনঃ
WIT Computers
✿ কীবোর্ড অ্যারিজিনাল কিনা?
✿ আপনার পূর্বের কীবোর্ড এর সাথে মিলিয়ে দেখুন।
✿ কীবোর্ড এর স্ক্রুর অবস্থান সঠিক আছে কিনা যাচাই করুন।
✿ কীবোর্ড রিবন ও রং একই কিনা তা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে দেখুন।
✿ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এই যে, কীবোর্ড লে-আউট ভিন্ন ভাষায় থাকার কারনে বাটনের সাইজ, আকৃতি ও অবস্থান ভিন্নতর হয়ে থাকে। ফলে ফ্রেমযুক্ত কীবোর্ড এর ক্ষেত্রে UK & USA লে-আউট এর মধ্যে ব্যপক পার্থক্য রয়েছে। Please Click the link below to know the keyboard leyout.

How to identify keyboard layout (USA or UK ) ?

যেহেতু আজকাল ল্যাপটপগুলোর টাচ ও কীবোর্ড একত্রে সংযুক্ত থাকে, যা পাম্পরেষ্ট নামে পরিচিত। এই পাম্পরেষ্ট থেকে কীবোর্ড-কে বিছিন্ন করে রিপ্লেস করতে গেলে Technician-কে চরম সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে, কেননা ল্যাপটপ এর মেইনবোর্ড ঐ পাম্পরেষ্টের উপর অবস্থান করে। ফলে সামান্যতম অসাবধানতার জন্য বড় ধরনের মাশুল দিতে হতে পারে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *